ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২ আষাঢ় ১৪২৮, ১৭ জুন, ২০২১
Mukto Sangbad Protidin

নেপালের প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে হেরে গেলেন


নাঈম, মুক্তসংবাদ প্রতিদিন: সোমবার, ১০ মে, ২০২১, ১১:২৩
নেপালের প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে হেরে গেলেন
প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি । ফাইল ছবি


 
পার্লামেন্টে আস্থা ভোটে হেরে গেছেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি। ওলির পক্ষে ভোট দিয়েছেন ৯৩ জন সদস্য। বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ১২৪ জন সদস্য। আর ভোটদানে বিরত ছিলেন ১৫ জন সংসদ সদস্য। খবর আলজাজিরার

খবরে বলা হয়, দেশটির প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারি ওলি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের নেতৃত্বে নতুন নির্বাচন দিয়ে নতুন সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করবেন। তবে ওলির কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। ভারতের সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, আস্থা ভোটে জয়ের জন্য ওলির কমপক্ষে ১৩৬টি ভোটের দরকার ছিল। কিন্তু ৯৩ জন সেই প্রস্তাবের সমর্থনে ভোট দেন। অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতা ধরে রাখার জন্য প্রয়োজনীয় সমর্থন জোগাড় করতে পারেননি ওলি।

গত মার্চে সরকার থেকে জোটসঙ্গী ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি সমর্থন তুলে নেওয়ায় সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছিলেন ওলি। ফলে আস্থা ভোটের আগে হুইপ জারি করেছিল সিপিএম-ইউএমএল (কমিউনিস্ট পার্টি অফ নেপাল-ইউনিফায়েড মার্ক্সিট লেনিনিস্ট)। 

হিমালয়ান টাইমসের প্রতিবেদন উদ্ধৃত করে এএনআই জানিয়েছে, আস্থা ভোটপর্ব শুরু আগে সংসদে নিজের সরকারের ‘কৃতিত্ব’ তুলে ধরেছিলেন। কিন্তু তাতেও কোনও ফল হয়নি।হিন্দুস্তান টাইমসর খবরে বলা হয়, দীর্ঘদিন ধরেই দলের অভ্যন্তরে বিরোধিতার মুখে পড়ে আসছেন ওলি। বিরোধী গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে বারবার দাবি করা হয় যে, সাধারণ আহ্বায়ক কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ওলি, তা যেন প্রত্যাহার করা হয়। দলের অভ্যন্তরে যে সমস্যাগুলো মাথাচাড়া দিচ্ছিল, তা সমাধানের জন্য একসঙ্গে কাজের বার্তা দেওয়া হয়েছিল। 

এরই মধ্যে পুষ্পকুমার দাহাল ওরফে প্রচণ্ডের নেতৃত্বাধীন গোষ্ঠীর চালে আরও চাপে পড়ে যান ওলি। তাছাড়া করোনা ভাইরাস মহামারী সামলানো নিয়ে দেশের অভ্যন্তরে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন ওলি। বিশেষত গত কয়েকদিনে যেভাবে দেশে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে, তাতে সেই সমালোচনার মাত্রা আরও বাড়তে থাকে। বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে ওষুধ, অক্সিজেন শেষ হয়ে যাওয়ার খবরও মিলতে থাকে। সেই পরিস্থিতিতে আরও কঠিন হয়ে ওঠে ওলির কাজ। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস, আলজাজিরা ও এএনআই

মুক্তসংবাদ প্রতিদিন / কে. আলম

পুতিন ‘ব্ল্যাংক চেক’ এর প্রস্তাব দিলেন পাকিস্তানকে


আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
সোমবার, ১২ এপ্রিল, ২০২১, ০৯:৩০
পুতিন ‘ব্ল্যাংক চেক’ এর প্রস্তাব দিলেন পাকিস্তানকে

ফাইল ছবি

প্রায় নয় বছর পর পাকিস্তানে সফরে গেলেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সার্জেই ল্যাভরভ। গত সপ্তাহের ওই সফরে পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এসময় রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমি আমার প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে একটি বার্তা নিয়ে এসেছি, যা পাকিস্তানকে বলতে, আমরা যেকোনও সহযোগিতার জন্য প্রস্তুত। পাকিস্তানের যা যা দরকার তার জন্য প্রস্তুত রাশিয়া।’

বৈঠকে অংশ নেয়া এক জ্যেষ্ঠ পাকিস্তানি কর্মকর্তা বলেন, ‘অন্যভাবে বললে, রুশ প্রেসিডেন্ট আমাদের ব্ল্যাংক চেক সেধেছেন।’

পুতিনের ‘ব্ল্যাংক চেক’ এর বিষয়ে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য উদ্ধৃত করে তিনি আরও বলেন, ‘আপনারা যদি গ্যাস পাইপলাইন, করিডোর, প্রতিরক্ষা বা অন্য যেকোনও সহযোগিতার জন্য আগ্রহী হন, তাহলে রাশিয়া তার জন্য প্রস্তুত।’ সূত্র: দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।

এদিকে রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে চরম যুদ্ধাবস্থায় বিরাজ করার মাঝে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের সহিত ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি বৈঠক সম্পন্ন এবং পুতিন প্রস্তাব দিয়ে রেখেছেন পাকিস্তানকে ‘ব্ল্যাংক চেক’। সব মিলে সামনের দিনগুলোতে বিশ্বে সামরিক তৎপরতা কোন দিকে যাচ্ছে তা এই মূহুর্তে বলা দূরুহ।

মুক্তসংবাদ প্রতিদিন / কে. আলম

মিয়ানমারে জান্তা সরকার ইসরায়েলি-কানাডিয়ান লবিস্ট নিয়োগ


মুক্তসংবাদ প্রতিদিন:
বুধবার, ১০ মার্চ, ২০২১, ০৬:২৫
মিয়ানমারে জান্তা সরকার ইসরায়েলি-কানাডিয়ান লবিস্ট নিয়োগ

ফাইল ফটো: মিয়ানমারে বিক্ষোভকারী জনগণ

মিয়ানমারের জান্তা সরকার একজন লবিস্টকে নিয়োগ দিয়েছে ‘আসল পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করার জন্য সহায়তা করতে’। এজন্য জান্তা সরকার ইসরায়েলি-কানাডিয়ান লাবিস্টকে দেবে ২ মিলিয়ন ডলার।

লবিস্ট আরি বেন মেনাশ ও তার প্রতিষ্ঠান ডিকেন্স অ্যান্ড ম্যাডসন কানাডাকে মিয়ানমারের জেনারেলরা নিয়োগ দিয়েছে। চুক্তিতে তিনি এবং তার প্রতিষ্ঠান যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশের কাছে মিয়ানমারের জান্তা সরকারের পক্ষ হয়ে তদবির করবেন।

এই প্রতিষ্ঠানটি মন্ট্রিলভিত্তিক ‘মিয়ানমারের উন্নয়ন উপযোগী নীতিমালা তৈরি ও বাস্তবায়নে সহায়তা করবে এবং দেশের প্রকৃত পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করতে সহায়তা করবে’।

বেন মেনাস জানান, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নয়ন ও চীনের কাছ থেকে নিজেদের দূরে রাখতে মিয়ানমারের জেনারেলরা তাকে নিয়োগ দিয়েছেন। ২০১৭ সালে দমন-পীড়নের ফলে যেসব রোহিঙ্গারা দেশটি ছেড়ে পালিয়ে এসেছিল তাদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করতে চায় মিয়ানমারের সামরিক কর্মকর্তারা।

এশিয়ার অ্যাডভোকেসি ডিরেক্টর জন সিফটন বলেছেন, এটি অত্যন্ত অবিশ্বাস্য যে, বেন মেনাসে যে প্রস্তাবটি যুক্তরাষ্ট্রে উপস্থাপন করবেন সেটি তিনি তাদের বোঝাতে পারবেন।

মিয়া টুন ও অন্যান্য শীর্ষ জেনারেলদের ওপর মার্কিন ট্রেজারি বিভাগ এবং কানাডিয়ান সরকার নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। হিসাব অনুযায়ী, কানাডিয়ান প্রতিষ্ঠানটিকে জান্তা সরকার বৈধভাবে তখনই অর্থ দিতে পারবে যখন কানাডিয়ান সরকার নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবে।

যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি বিভাগের সাবেক সিনিয়র নিষেধাজ্ঞা বিষয়ক পরামর্শদাতা পিটার কুকিক বলেছেন, অনুমতি ছাড়াই বেন মেনাসে নিষেধাজ্ঞাপ্রাপ্ত দলগুলিকে যে সেবা সরবরাহ করছেন, তা যুক্তরাষ্ট্রের আইনকে লঙ্ঘন করে।

এ বিষয়ে বেন মেনাসে জানিয়েছেন, এই অর্থ গ্রহণের জন্য ট্রেজারিস অফিস অফ ফরেন অ্যাসেট কন্ট্রোলস (ওএফএসি) এবং কানাডিয়ান সরকারের কাছ থেকে লাইসেন্সের প্রয়োজন হবে বলে তিনি আইনি পরামর্শ পেয়েছেন। তবে মিয়ানমারের জান্তার সরকারের পক্ষে তদবির করলে এটি আইন ভঙ্গ করবে না তিনি জানান।

মুক্তসংবাদ প্রতিদিন / কে. আলম
Share on Facebook
×