ঢাকা সোমবার, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ মে, ২০২২
Mukto Sangbad Protidin

বাইডেন ইউক্রেন নিয়ে ভুল পথে! নিশ্চিতভাবেই ট্রাম্পকে খুশি করবে: সমীক্ষা


আন্তর্জাতিক ডেস্ক:মুক্তসংবাদ প্রতিদিন মঙ্গলবার, ২৯ মার্চ, ২০২২, ১২:১২
বাইডেন ইউক্রেন নিয়ে ভুল পথে! নিশ্চিতভাবেই ট্রাম্পকে খুশি করবে: সমীক্ষা
ফাইল ছবি: জো বাইডেন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কর্মপদ্ধতিতে আস্থা নেই অধিকাংশ আমেরিকানের। ৭১ শতাংশ আমেরিকান মনে করেন, বাইডেনের অধীনে দেশ ভুল পথে যাচ্ছে। পরোক্ষভাবে ইউক্রেন যুদ্ধে জড়ানোর পর যুক্তরাষ্ট্রের জনগণ এই মত দিল। অন্যদিকে, ৪০ শতাংশ আমেরিকান বাইডেনের নেওয়া পদক্ষেপগুলোতে আস্থা রাখেন।

এনবিসি নিউজ পরিচালিত সমীক্ষায় এই পরিসংখ্যান উঠে এসেছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদে দায়িত্ব পালনের মেয়াদে এই প্রথম সর্বোচ্চসংখ্যক জনগণ বাইডেনের প্রতি অনাস্থা পোষণ করলেন। খবর এনবিসি নিউজের

জরিপে দেখা গেছে, গত জানুয়ারির তুলনায় বর্তমানে প্রায় তিন শতাংশ বেশি মানুষ বাইডেনের নেওয়া সিদ্ধান্তে আস্থা রাখতে পারছে না। তাদের বড় একটি অংশ মনে করে, যুক্তরাষ্ট্র এখন ভুল পথে চলছে। ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণের বিরোধিতা করে যুক্তরাষ্ট্র ন্যাটোকে সঙ্গে নিয়ে ত্বরিত পদক্ষেপ নেওয়ার পর জনমতের এই পরিবর্তন হয়েছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্নেষকরা।

এর পাশাপাশি কভিড-১৯ মহামারি ও ডলারের মুদ্রাস্ম্ফীতির ব্যাপারটিও জনমত পরিবর্তনে ভূমিকা রেখেছে। সমীক্ষার ফলাফল পাওয়ার পর রিপাবলিকান নেতা বিল ম্যাকইনটার্ফ এনবিসি নিউজকে বলেন, 'ডেমোক্র্যাটরা সম্ভবত একটি বিপর্যয়মূলক নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।' এমন চলতে থাকলে হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভ ও সিনেটের মধ্যবর্তী নির্বাচনেও বাইডেনের ভরাডুবি হবে বলে মনে করেন ডেমোক্র্যাট নেতা জেফ হরউইট।

গত সপ্তাহে চার দিনে মোট এক হাজার প্রাপ্তবয়স্ক মার্কিনির ওপর এই জরিপ করা হয়েছে, যাদের মধ্যে ৭৯০ জন নিবন্ধিত ভোটার ছিলেন।

বাইডেনের বর্তমান এই অবস্থান নিশ্চিতভাবেই ট্রাম্পকে খুশি করবে। কারণ, ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে আবারও মনোনয়ন চাইবেন বলে আগেই জানিয়েছেন তিনি। তখনও বাইডেনের জনপ্রিয়তা এমন থাকলে নির্বাচনে কী ঘটবে, তা একরকম আন্দাজ করতে পারা যায়।

বাইডেন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের তিন মাস পরে অর্থাৎ ২০২১ সালের মার্চে এনবিসি নিউজের এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, তখন ৫৩ শতাংশ আমেরিকান বাইডেনকে সমর্থন করেছিলেন এবং তাদের মধ্যে ভোটার ছিলেন ৫১ শতাংশ। একই জরিপে আমেরিকানের ৩৯ শতাংশ ও নিবন্ধিত ভোটারের ৪৩ শতাংশ তার কর্মপদ্ধতিকে অপছন্দ করেছেন। সূত্র: সমকাল

 

মুক্তসংবাদ প্রতিদিন / কে. আলম

ইসরায়েল ভুলে নিজেদের ক্ষেপনাস্ত্রেই ড্রোন ভূপাতিত করেছে


এমএস.প্রতিদিন ডেস্ক:
বুধবার, ২৬ মে, ২০২১, ১০:২২
ইসরায়েল ভুলে নিজেদের ক্ষেপনাস্ত্রেই ড্রোন ভূপাতিত করেছে

প্রতিকী ছবি

 

ইসরায়েল ভুল করে নিজেদের একটি ড্রোন ভূপাতিত করেছে নিজেদের ক্ষেপনাস্ত্রের আঘাতে। গাজা উপত্যকায় হামলা চালানোর সময় তাদের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এ ভুল করে। গতকাল মঙ্গলবার স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো এসব তথ্য জানিয়েছে। 

তবে ইসরায়েলের সামরিক ড্রোনটিকে কবে ভূপাতিত করা হয়েছে তা সুনির্দিষ্টভাবে বলা হয়নি। তথ্যসূত্রে জানা যায়, সবশেষ ‘গার্ডিয়ান অব দ্যা ওয়ালস’ নামে গাজার ওপর যে সামরিক হামলা চালানো হয় তখন ইসরায়েলের আয়রন ডোম ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ভুল করে নিজেদের একটি সামরিক ড্রোন ভূপাতিত করেছে। 

ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর একটি সূত্রের বরাত দিয়ে দেশটির সরকারি সম্প্রচার কেন্দ্র হতে এর সত্যতা নিশ্চিত হওয়া যায়। 

উল্লেখ্য, গত শুক্রবা টানা ১১ দিনের যুদ্ধ শেষে মিসরের মধ্যস্ততায় এক যুদ্ধবিরতি চুক্তির মাধ্যমে ফিলিস্তিন ও ইসরায়েল সংঘাতের আপাতত অবসান হয়। সূত্র : মিডলইস্ট মনিটর, আনাদেলু এজেন্সি

মুক্তসংবাদ প্রতিদিন / কে. আলম

বিল গেটস ও মেলিন্ডার অবশেষে বিবাহ বিচ্ছেদ


আমিনুল, আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
মঙ্গলবার, ০৪ মে, ২০২১, ১০:০১
বিল গেটস ও মেলিন্ডার অবশেষে বিবাহ বিচ্ছেদ

বিল গেটস ও মেলিন্ডার গেটস । ফাইল ছবি

সংসার ভাঙলো মাইক্রোসফট কর্পোরেশনের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস ও তার স্ত্রী মেলিন্ডা গেটস-এর। বর্তমানে ৬৫ বছর বয়সী বিল গেটস ও ৫৬ বছর বয়সী মেলিন্ডার বিয়ে হয়েছিল ১৯৯৪ সালে। দীর্ঘ ২৭ বছর একসঙ্গে থাকার পর বিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়েছেন এই দম্পতি। 

সোমবার দিবাগত রাতে তাদের নিজস্ব টুইটার পেইজে আলাদা পোস্টে এ তথ্য নিশ্চিত করে। সংসার ভাঙার কারণ হিসেবে তারা জানান, নিজেদের সম্পর্কের ওপর নিরীক্ষা ও চিন্তাভাবনার পর আমরা আমাদের সংসারের ইতি টানার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যুগল হিসেবে আমরা আর থাকতে পারবো বলে মনে হয় না।

উল্লেখ্য, ১৯৮০’র দশকের শেষের দিকে মেলিন্ডা মাইক্রোসফটে যোগদানের পর বিল গেটসের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এই দম্পতির তিন সন্তান রয়েছে। তারা একসঙ্গে দাতব্য প্রতিষ্ঠান ‘বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন’ গড়ে তোলেন। এ ফাউন্ডেশন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কাজ করে যাচ্ছে।

মুক্তসংবাদ প্রতিদিন / কে. আলম
Share on Facebook